1. admin@manirampurkantho.com : admin :
শিরোনাম :
বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে মণিরামপুরে স্বাস্থ্যকর্মীদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি চলমান ত্রানের চাল চুরির মামলায় প্রতিমন্ত্রীর ভাগ্নে বাচ্চুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ও মাল ক্রকের আদেশ মনিরামপুরের কৃতি সন্তান ডা. মেহেদী হাসানকে করোনা চিকিৎসায় বিশেষ অবদানের জন্য সংবর্ধনা প্রদান মণিরামপুরে জেল হত্যা দিবসে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মণিরামপুরে মামার ধর্ষণের শিকার ভাগ্নি অবরুদ্ধ যে কোন সময়ে অপহরণ হতে পারে ধর্ষিতা ধর্ষণ, শিশু নির্যাতন বন্ধসহ অপরাধীদের ফাঁসির দাবীতে মণিরামপুরে বন্ধনের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত মনিরামপুরে ৫৫৫ বস্তা চাউল কান্ডে ভাইস চেয়ারম্যান বাচ্চুসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ডিবির মামলা মণিরামপুরে মাদ্রাসার সুপার ও সভাপতির বিরুদ্ধে ভূয়া নিয়োগসহ অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন “শুভ মহালয়া”- সবাইকে আগমনীর আনন্দ বার্তা ও শুভেচ্ছা অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়ের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উত্তাল মণিরামপুর সরকারী কলেজ ক্যাম্পাস

মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমুলক মামলার প্রতিবাদে মনিরামপুরে চেয়ারম্যানের আবারও সংবাদ সম্মেলন

  • Update Time : বুধবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
  • ১৬৫ Time View

নূরুল হক, মণিরামপুর (০১৭২১৩৯০২০৮)

যশোরের মণিরামপুরের কুলটিয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখর চন্দ্র রায়সহ এলাকার কয়েকজন নামে মিথ্যা মামলা করার প্রতিবাদে মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্জ কাজী মাহমুদুল হাসানের উপস্থিতিতে বুধবার বিকেলে মণিরামপুর প্রেসক্লাব ভবনে আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে সংবাদিকদের সামনে লিখিত বক্তব্যে পাঠ করেন ইউপি চেয়ারম্যান শেখর চন্দ্র রায়।

লিখিত বক্তব্য পাঠ কালে তিনি দাবী করে, রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে অত্র ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামের একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের নিতাই হালদারের ছেলে বিশ্বজিৎ পরিবারসহ  রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ একটি কু-চক্রীমহল নিজেদের অপরাধ আড়াল করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরসহ নানা ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। ওই কু-চক্রীমহল বিশ্বজিৎ পরিবারকে আমার বিরুদ্ধে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে প্রতিপক্ষরা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করে ফায়দা লুটতে চাচ্ছে। আমি অত্র ইউনিয়নরে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর যে মহলটি আমার কাছ থেকে বিভিন্ন সময় অনৈতিক সুবিধা আদায় করতে ব্যর্থ হয়েছে, মূলত: তারাই আমিসহ অত্র এলাকার আওয়ামীলীগ ও তার সহয়োগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে নানামূখী অপ্রপ্রচার চালাচ্ছে। ষড়যন্ত্র মূলক মিথ্যা হামলা দায়েরকারি ও চক্রান্তকারিদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কর্তৃক যাহাতে তদন্ত পূর্বক আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবী জানান। এই মর্মে লিখিত ভাবে জানাচ্ছি যে, সুইটি হালদার স্বামী বিশ্বজিৎ হালদার সাং- আলীপুর, উপজেলা মণিরামপুর, জেলা যশোর, বাদী হয়ে গত ৫/২/১৮ বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালত যশোরে পি-০৯/২০১৮ মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় বাদীকে শ্লীতাহানিসহ নানাবিধ মনগড়া অভিযোগ এনে আসামী করা হয়েছে আমার বিরুদ্ধে। শুধু আমি নয়, এ এলাকার আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীকে ওই মামলার আসামী করা হয়েছে। তারা হলেন আলীপুর গ্রামের স্বপন বিশ্বাসের পুত্র সুব্রত বিশ্বাস, সুকুমার বিশ্বাসের পুত্র দিপংকর বিশ্বাস, ভবেন্দ্রনাথ বিশ্বাসের পুত্র পলাশ বিশ্বাস, ভবেন হালদারের পুত্র কপিল হালদার ও মশিয়াহাটি গ্রামের বিপুল রায়ের পুত্র বিপ্লব রায়  এবং অখিল বিশ্বাসের পুত্র অমিতাব বিশ্বাসকে। হতবাকের বিষয় হচ্ছে উক্ত ষড়যন্ত্র মূলক মামলার স্বাক্ষীদের মধ্যে কয়েকজন এ মামলার বিষয় কিছুই জানেনা। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলাটি প্রতিষ্ঠিত করতে প্রতিপক্ষসহ বিশ্বজিৎ তার স্ত্রী সুইটি হালদার ও অবুঝ শিশুপুত্র অয়ন হালদারকে ব্যবহার করে সাংবাদিক সমাজসহ বিভিন্ন জায়গায় মায়া কান্নায় লিপ্ত হয়েছে। একই সাথে অভিযোগ করা হচ্ছে বিশ্বজিত ও তার পরিবার আমার ভয়ে বাড়ি ছাড়া হয়েছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে প্রশাসনের সকল স্তরের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে বিনয়ের সাথে জানাতে চাই এ অভিযোগের আদৌ সত্যতা আছে কিনা, তা গ্রামে তদন্ত করলে বেরিয়ে আসবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

সাংবাদিকদের উদ্দ্যেশে তিনি আরও বলেন, যেহেতু আমি অত্র ইউনিয়নে দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করার সুবাদে সৃষ্টি কর্তার অশেষ কৃপা ও অত্র ইউনিয়নের আবালবৃদ্ধবণিতার অকুণ্ঠ সমর্থন নিয়ে ও আমার ব্যক্তিগত গ্রহনযোগ্যতায় আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেয়ে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর এলাকায় জনকল্যাণে প্রভ’ত কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ আমি ইতোমধ্যে মাদারতেরেসা, মহাত্মাগান্ধী, জেনারেল ওসমানি, কাজী নজরুল ইসলামসহ ৬টি পদকে ভূষিত হয়েছি। কিন্তু খুশি হতে পারেনি প্রতিপক্ষরা। তারা প্রতিহিংসাপরায়ন হয়ে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হওয়ার ধারাবাহিকতায় এমন ন্যাক্কারজনক অভিযোগ এনে আজ আমাকে রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে হেয় করতে এ ঘৃণ্য অপপ্রয়াস বলে আমি মনে করি। অতি পরিতাপের বিষয় বিশ্বজিতের প্রথম শ্রেণিতে পড়–য়া শিশুপুত্র নয়ন হালদার ও পলাশের শিশুপুত্র জিৎ বিশ্বাসের মধ্যে বিবাদকে পুঁজি করে বিশ্বজিতের স্ত্রী সুইটি হালদার, মা স্মৃতিরানী হালদার-বাবা নিতাই হালদারসহ তাদের লোকজন পলাশের পরিবারের উপর চড়াও হয়। এরই জের ধরে আমিসহ গ্রামের নিরিহ ব্যক্তিদের নামে বিজ্ঞ আদালতে উক্ত মিথ্যা মামলা দায়ের করে। যা সম্পুর্ন মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক। যা তদন্ত করলেই বেরিয়ে আসবে সত্য ঘটনা। অথচ দু:খজনক হলেও সত্য সেদিনের ওই শালিসী সভায় আমিসহ যাদের নামে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে তাদের অনেকেই সেখানে উপস্থিত ছিলেন না। এদিকে বিশ্বজিৎসহ তার পক্ষীয়চক্রের বিরুদ্ধে এলাকায় নানাবিধ অপরাধ কান্ডের অভিযোগ রয়েছে। যা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সঠিক তদন্তের মাধ্যমে বেরিয়ে আসবে বলে তিনি দাবী করেন।

এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন, মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র কাজী মাহমুদুল হাসান, ইউনিয়ন আ’লীগ সহসভাপতি মনোরঞ্জন ঘোষ, ইউপি সদস্য প্রভাত চ্যাটার্জি, আ’লীগ নেতা হাসেম আলী সরদার, মশিয়ার রহমান, শংকর রায়, প্রভাষক মদন মোহন চক্রবর্তীসহ অত্র ইউনিয়নের সূধীজন।


Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category


© All rights reserved © 2020 www.manirampurkantho.com
Site Customized By NewsTech.Com