1. admin@manirampurkantho.com : admin :
  2. jahidjashore98@gmail.com : jahid :
শিরোনাম :
মণিরামপুরে আটককৃত ৫৫৫ বস্তা চাল নিলামে বিক্রি এখনও সক্রিয় মণিরামপুরে চাল পাচার সিন্ডিকেট! ‘আম্ফান’: ছাত্রলীগকে দুর্গত মানুষদের পাশে থাকার নির্দেশ ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের ৭ নম্বর বিপদ সংকেত মণিরামপুরে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ম্যাসেঞ্জারে কুরুচিপূর্ণ বার্তা দিয়ে প্রেম নিবেদন মনিরামপুরে ফ্রি এ্য্যাম্বুলেন্স সার্ভিস উদ্বোধন করেন সাবেক এমপি পুত্র হুমায়ন সুলতান সরকারী চাল পাচারের ঘটনায় আটক শহিদুলকে আদালতে জবানবন্দি শেষে জেলহাজতে প্রেরণ আইনি জটিলতায় মণিরামপুর থানা চত্বরের খোলা আকাশের নিচে নষ্ট হতে চলছে উদ্ধারকৃত ৫৫৫ বস্তা চাল মণিরামপুরে ট্রাকভর্তি সরকারী চাল কালোবাজারে বিক্রয় সিন্ডিকেট নেতা শহিদুল গ্রেফতার করোনা ভাইরাসে বিক্রি নেই ফুল, কেশবপুরে মাঠেই শুকোচ্ছে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল

রাজাকারের তালিকা করতে ৬০ কোটি টাকা খরচের তথ্য ‘অসত্য’

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ১২৭ Time View
নিউজ ডেস্ক: রাজাকারের তালিকা প্রকাশ হতেই শুরু হয় তুমুল সমালোচনা। রাজাকারের তালিকায় উঠে আসে অনেক খ্যাতিমান মুক্তিযোদ্ধোদেরও নাম। গত রোববার প্রকাশ করা রাজাকারের তালিকা বিতর্কের মুখে গতকাল বুধবার বাতিল করা হয়।

রাজাকারের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধা ও চিহ্নিত অনেক রাজাকার বাদ যাওয়ার বিতর্কের পাশাপাশি উঠে আসে এই তালিকা তৈরির খরচের বিষয়টিও। অনেকেই দাবি করেন, এ তালিকা করতে ৬০ কোটি টাকা খরচ হয়েছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমেও এ বিষয়ে খবর প্রকাশিত হয়। এবার খরচের এ হিসাবকে ‘অসত্য’ বলে দাবি করেছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক।

আজ বৃহস্পতিবার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ‘‘রাজাকারের তালিকা করতে ৬০ কোটি টাকা খরচ’’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হকের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।’

মন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘এ তালিকা প্রণয়ন করতে কোনো অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়নি বা চাওয়া হয়নি। কাজেই একটি পয়সাও খরচের প্রশ্নই আসে না। এটি একটি অসত্য তথ্য।’’

এ ধরনের সংবাদ প্রকাশ না করতে সংবাদমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এছাড়া রাজাকারের তালিকার খরচ নিয়ে প্রকাশ করা সংবাদ প্রত্যাহার করে আগামী ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে ক্ষমা না চাইলে ব্যবস্থা নেবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়।

গত রোববার ১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের নামের তালিকা প্রকাশ করেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। এরপরই তা নিয়ে বিতর্ক উঠে।


Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category


© All rights reserved © 2018 www.manirampurkantho.com