1. admin@manirampurkantho.com : admin :
শিরোনাম :
মণিরামপুরে মাদ্রাসার সুপার ও সভাপতির বিরুদ্ধে ভূয়া নিয়োগসহ অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন “শুভ মহালয়া”- সবাইকে আগমনীর আনন্দ বার্তা ও শুভেচ্ছা অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়ের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উত্তাল মণিরামপুর সরকারী কলেজ ক্যাম্পাস মণিরামপুর সরকারি কলেজে অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়ের অভিযোগ মণিরামপুরে জমি দখলকে কেন্দ্র করে যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে প্রতিপক্ষের উপর হামলা হামলায় নারী-পুরুষসহ আহত ১০, দেশী অস্ত্র ও গাজা উদ্ধার মণিরামপুরে কৃষকদলের উদ্যোগে বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ৭১’র পরাজিত শত্রুদের সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিতে ছাত্রলীগকে মুখ্য ভুমিকা পালন করতে হবে -প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য মণিরামপুরে ৫ দফা বাস্তবায়নের দাবীতে বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতির স্মারকলিপি প্রদান ভূয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভয়নগর দাপিয়ে মনিরামপুরে আটক বাইক চালিয়ে গায়ে হলুদ ও বিয়ের অনুষ্ঠানে কনে

মণিরামপুরে ভিজিএফ চাল জব্দ : কমিটির প্রতিবেদন দাখিল নিয়ে তেলাতেলি

  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
  • ১৮৮ Time View

অমারেশ কুমার বিশ্বাস,রাজগঞ্জ (যশোর) : মণিরামপুর উপজেলার হরিহরনগর ইউনিয়নের অসহায়-দরিদ্রদের প্রাপ্য ভিজিএফ এর ৩’শ ৩ বস্তা চাল বিক্রির পর উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক জব্দ এবং একটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান সীলগালা করার ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ২১ দিনেও দাখিল করা হয়নি। অভিযোগ উঠেছে বিক্রি যোগ্য নয়, সরকারি ওই বিপুল পরিমান চাল বিক্রয় ও ক্রয়ের সাথে জড়িতরা রক্ষা পেতে বিভন্ন নেতার কাছে তদবিরসহ তদন্ত কমিটিকে ম্যানেজ করতে জোর চেষ্টা চালাচ্ছে।

 

এ ব্যাপারে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটির আহবায়ক উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আবুজার সিদ্দিকী জানিয়েছেন, তদন্তের স্বার্থে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট আবেদন করে অতিরিক্ত সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে। অবশ্য সময় বৃদ্ধির বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান উল্লাহ শরিফী বলেন, কোন তদবীরে কাজ হবে না, তদন্তে প্রমাণ মিললে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। তবে উক্ত সরকারি চাল জব্দের ঘটনা অনেক দিন পার হলেও এখনো পর্যন্ত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা  না নেওয়ায় সচেতন মহলসহ এলাকাবাসির মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই বলছেন ভিজিএফ এর ওই চাল ইউনিয়ন পরিষদ থেকে নিয়ে যারা বিক্রয়- ক্রয়ের সাথে জড়িত তারা প্রভাবশালী। ফলে যে কোন উপায়ে তারা পার পেয়ে যেতে পারে।

 

উল্লেখ্য, গত মাসের ২০ আগস্ট দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসন উপজেলার হরিহরনগর ইউনিয়নের খাটুরা বাজারের নুর ইসলামের আড়ৎ থেকে ভিজিএফএর ৩’শ ৩ বস্তা চাল জব্দ করে। এ সময় ব্যবসায়ী নুর ইসলামের আড়ৎটি সীলগালা করে উক্ত চাল রাখা হয় হরিহরনগর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব শারমীন সুলাতানার জিম্মায়। আড়ৎ মালিক নুর ইসলাম ওই সময় দাবী করেন ভিজিএফএর চাল প্রাপ্য দরিদ্ররা উত্তোলনের পর তার নিকট বিক্রি করেছে। অবশ্য উপজেলা প্রশাসনের বক্তব্য ভালো মানের চাল দরিদ্ররা বিক্রি করবে কেন? তাছাড়া সরকারি ওই চাল বাজারে ক্রয় ও বিক্রয় যোগ্য না। এদিকে ঘটনার দিন ওই চাল জব্দ করার পর স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক ব্যক্তি বলেন, আগের দিন রাতে কয়েকটি ভ্যান যোগে হরিহরনগর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে উক্ত চাল ওই আড়তে আনা হয়। অভিযোগ রয়েছে ইউপি চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা মাস্টার জহুরুল ইসলামের সহযোগীতায় পরিষদের আরো অনেকেই সরকারি ওই চাল কালোবাজারে বিক্রির সাথে জড়িত। অবশ্য ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম ওই সময় সাংবাদিকদের কাছে তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করেন। এ ব্যাপারে এলাকাবাসির জোর দাবী উক্ত চালের ঘটনায় সঠিক তদন্ত হলে প্রকৃত জড়িদের মুখোশ খুলে যাবে। ভিজিএফ এর ওই চাল জব্দের ঘটনায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যাদেরকে নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে তার আহবায়ক হলেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আবুজার সিদ্দিকী। বাকি দুই জন হলেন, কমিটির সদস্য সচিব উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইয়ারুল হক এবং সদস্য উপজেলা বিআরডিবি জীবিকায়ন প্রকল্প কর্মকর্তা আব্দুর সবুর।


Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category


© All rights reserved © 2020 www.manirampurkantho.com
Site Customized By NewsTech.Com