1. admin@manirampurkantho.com : admin :
শিরোনাম :
মণিরামপুরে চাল কান্ডে ভাইস চেয়ারম্যান বাচ্চুর জামিন মণিরামপুরে ৫৫৫ বস্তা চাল কান্ডে প্রতিমন্ত্রী ভাগ্নে ভাইসচেয়ারম্যান বাচ্চু কারাগারে মণিরামপুরে মাধ্যমিকে অটোপাশের দাবিতে মানববন্ধন মণিরামপুর পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামীলীগ এক কাতারে মণিরামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন ঐতিহ্যবাহী ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ বাম চোখের পাতা কাঁপে মানে মারাত্মক বিপদের লক্ষণ মনিরামপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেলেন কাজী মাহমুদুল হাসান মণিরামপুরে স্বাস্থ্য বিভাগের ৬টি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ও ক্লিনিকে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা মণিরামপুরে শিবির নেতাকে নিয়োগের প্রতিবাদে অভিযোগ ও মানবন্ধন

কেশবপুরে প্রভাবশালী জামায়াত নেতার মামলার ফাঁদে স্বর্বশান্ত এতিম পরিবার

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৩৫০ Time View

নিউজ ডোক্স, যশোর: যশোরের কেশবপুরে এতিমের সম্পতি ভোগদখলকারী সেই জামায়াত নেতা ও তার ছেলে আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এতিম পরিবারটিতে শায়েস্তা করতে একের পর এর নানা কলাকৌশল করে যাচ্ছে। পত্রিকায় লিখে লাভ হবে না থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে ফেলেছি বলে হুমকি দিচ্ছে। ফলে অসহায় এতিম পরিবারের সদস্যরা লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে যশোর জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

সংশ্লিষ্টসুত্রে জানা গেছে, কেশবপুরের পাচারই গ্রামের নইমুদ্দিন মোড়লের ছেলে ও জামায়াতের রুকন সদস্য আব্দুল হামিদ এবং তার ছেলে আব্দুল হাই এর রোষানলে পড়ে সর্বস্ব হারিয়ে একই গ্রামের মৃত হাসান আলীর এতিম দুই ছেলে বাপ্পা ও শাকিল মোড়ল। হাসান আলীর মৃত্যুর পর তার বসত ভিটার উপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে জামায়াত নেতা আব্দুল হামিদের। পাচারই মৌজার ৭০ খতিয়ানে ১৩৩৪ দাগে অবস্থিত ওই বাড়ির ১১ শতক জমির মধ্যে তার ৪ শতক জমি রয়েছে বলে প্রায় ১৩ বছর একের পর এক মামলা দিয়ে হয়রানি করছে আব্দুল হামিদ। বৈধ কোন কাগজপত্র না থাকায় একাধিকবার ওই মামলায় তিনি হেরে গেছেন। তারপরও নতুন করে মামলার জালে ফেলে এতিম ওই পরিবারটিকে সর্বশান্ত করে ফেলেছেন। মামলার টাকা জোগায় করতে পিতৃহারা ওই দুই এতিম পরিবারের সদস্যদের বর্তমানে ত্রাহি অবস্থা।

 

সুত্র বলছে, জামায়াত নেতা আব্দুল হামিদ প্রভাবশালী। তার অর্থবিত্তেরও অভাব নেই। তিনি নাশকতার অর্থ যোগাদাতাও। দারিদ্র ওই এতিমের বাড়ির পাশে থাকা অপর একটি জমির গাছ কাটাসহ জোরপূর্বরক ভোগদখল করে যাচ্ছেন ওই জামায়াত নেই। এ ক্ষেত্রে তিনি স্থানীয় থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে ফেলেছেন। কিছু দিন আগে এক এতিমকে তুলে নিয়ে যায় স্থানীয় থানার দারোগা নাজিম উদ্দিন। পরে স্থানীয়দের চাপে পড়ে মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

 

সুত্রবলছে, সম্প্রতি ওই এতিম পরিবারটি আব্দুল হামিদের হয়রানিমুলক মামলা থেকে রেহাই পেতে এসপি ক সার্কেলের কাছে লিখিত অভিযোগ করে। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে একজন আইনজীবীকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। কিন্তু আব্দুল হামিদ মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে তাকেও ম্যানেজ করে ফেলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ফলে বিচারের নামে প্রহসনে শিকার হয় ওই এতিম পরিবারটি। উল্টো পুলিশ হয়রানির তাদে হয়রানি করে।। ওই এতিম পরিবারের সদস্যরা জামায়াত নেতার ষড়যন্ত্রমুলক মামলা থেকে রেহাই পেতে যশোর জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে। স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরাও ওই পরিবারটিকে হয়রানি না করারর জন্য ওই অভিযোগপত্রে সুপারিশ করেছে। তারা জামায়াত নেতা আব্দুল হাইকে আটক করে তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

 

এদিকে পত্রপত্রিকায় এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশিত হলে জামায়াত আব্দুল হামিদ এবং তার ছেলে আব্দুল হাই আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। থানা পুলিশসহ সবাইকে টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে ফেলেছি বলে ওই এতিম পরিবারের সদস্যদের হুমকি দিচ্ছে। ফলে অসহায় হয়ে ওই এতিম পরিবারটি যশোর জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। তারা জেলা প্রশাসক বরাবর এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ দিয়েছেন।

 

অভিযোগের ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে আব্দুল হাই বলেন, এসব অভিযোগ মিথ্যা আপনারা ঘটনাস্থলে আসেন।

সূত্রঃ ওয়ান নিউজ বিডি।


Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category


© All rights reserved © 2020 www.manirampurkantho.com
Site Customized By NewsTech.Com