1. admin@manirampurkantho.com : admin :
শিরোনাম :
বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে মণিরামপুরে স্বাস্থ্যকর্মীদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি চলমান ত্রানের চাল চুরির মামলায় প্রতিমন্ত্রীর ভাগ্নে বাচ্চুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ও মাল ক্রকের আদেশ মনিরামপুরের কৃতি সন্তান ডা. মেহেদী হাসানকে করোনা চিকিৎসায় বিশেষ অবদানের জন্য সংবর্ধনা প্রদান মণিরামপুরে জেল হত্যা দিবসে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মণিরামপুরে মামার ধর্ষণের শিকার ভাগ্নি অবরুদ্ধ যে কোন সময়ে অপহরণ হতে পারে ধর্ষিতা ধর্ষণ, শিশু নির্যাতন বন্ধসহ অপরাধীদের ফাঁসির দাবীতে মণিরামপুরে বন্ধনের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত মনিরামপুরে ৫৫৫ বস্তা চাউল কান্ডে ভাইস চেয়ারম্যান বাচ্চুসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ডিবির মামলা মণিরামপুরে মাদ্রাসার সুপার ও সভাপতির বিরুদ্ধে ভূয়া নিয়োগসহ অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন “শুভ মহালয়া”- সবাইকে আগমনীর আনন্দ বার্তা ও শুভেচ্ছা অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়ের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উত্তাল মণিরামপুর সরকারী কলেজ ক্যাম্পাস

ঝিকরগাছায় পানের উর্দ্ধমূখী দামে বাজার কাপাচ্ছে ব্যবসায়ীরা

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৫ মার্চ, ২০১৮
  • ২৫১ Time View

আফজাল হোসেন চাঁদ ও ফরিদা ইয়াসমিন পলি, ঝিকরগাছা থেকে ।। আবহমান গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী অতিথি আপ্যায়নের অন্যতম হাতিয়ার পান। আর এই পানের দাম ব্যবসায়ীদের লাগামহীন কর্মকান্ডের কারণে বাজারে হু-হু করে বাড়ছে। ফলে উৎপাদনকারী ব্যবসায়ী ক্রেতা বিক্রেতাসহ নাভীশ্বাস উঠেছে পান পিয়াসীদের। সবজিতে স্বস্তি হলেও কমেনি চালের দাম, সেই সাথে এখন দামের উর্দ্ধমূখী হয়ে বাজার কাপাচ্ছে পান ব্যবসায়ীরা। একটু হিসাব করলেই দেখা যাবে দেশের এক তৃতীয়াংশ লোকই পান খেয়ে থাকে। বিশেষ করে পরিবারের পিতা-মাতা, বয়স্ক দাদা-দাদি, নানা-নানি ও মুরোব্বিরা। নি¤œ আয়ের মানুষসহ সব শ্রেণি পেশার মানুষই পান খেয়ে শরীর মনের ক্ষুধা মেটাই। কিন্তু গত এক মাসের ব্যবধানে পানের বাজারে দামের এই অস্থিতিশীলতার কারণে একরম চাঁপা কষ্টের মধ্যেই আছে পানের সাথে জড়িত পান প্রিয়াসী মানুষেরা। ঝিকরগাছা পৌরসভার অন্তগত বড় বাজার ও উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে অনুসন্ধানে জানা গেছে, মাসের ব্যবধানে পানের দাম কয়েকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। গত সপ্তাহে যে পানের পোন প্রতি ৬০-৮০ টাকা ছিল তা বর্তমানে ২৫০-৩০০ টাকা এবং খিলি পান যা গত সপ্তাহে ১২০-১৫০ টাকা ছিল তা বর্তমানে ৩৫০-৪০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। চলতি বছর প্রচন্ড শীতে উপজেলার পান চাষীদের পানের বরোজ গুলোর পান অকালে ঝড়ে পড়ায় স্থানীয় বাজারে পানের সরবরাহ কমে গেছে। দীর্ঘদিন ধরে পান ব্যবসায়ের সাথে জড়িতরা এবছর ব্যাপক লোকশানের সম্মুক্ষীণ হচ্ছেন। ঝিকরগাছা বাজারের পান ব্যবসায়ী গদখালী ইউনিয়নের বোধখানা গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে আলমগীর হোসেন জানান, গত সপ্তাহে মোকাম থেকে পান কিনে এনে তাদের আট-নয় জন ব্যবসায়ী প্রত্যেকে অনেক টাকা করে লোকশান দিয়েছেন। পানগুলো ঝরে পড়া ছিল তারা আগে বুঝতে পারেনি। বর্তমানে মোকামেই পানের আকাল চলছে। মোকাম থেকে বেশি দরে কিনতে হচ্ছে। মোকামে দাম বাড়তি হওয়ায় তার সাথে পরিবহন ও অন্যান্যা খরচ যোগ করলে দেখা যাচ্ছে যেন পান নয় শোনা কিনছি। পান কিনতে আসা বয়স্ক মুরোব্বী কাটাখাল গ্রামের নজরুল ইসলাম খোকন বলেন, পাঁচচল্লিশ বছর ধরে পান খাই এখন প্রতিদিন ২০-৩০ খিলি করে পান খায় কিন্তু বর্তমানে পানের যে দাম বাড়ছে তাতে করে ৫-৬ টা পানও খাওয়াই মুশকিল হয়ে পড়েছে। পানের বাজারে আসতেই ভয় হয়। চাহিদা মত পান না খেতে পেরে শাররিক ও মানষিক ভাবে ব্যাপক কষ্টে আছি। গদখালী ইউনিয়নের জাফরনগর গ্রামের শামসুর রহমানের ছেলে আলম হোসেন বাজারের খুচরা পান বিক্রেতা আলমগীর হোসেন জানান, বেশি দামে কিনতে হয় বলেই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। পানের উৎপাদন কম হওয়ায় পান সরবরাহ কম হচ্ছে এজন্য দাম বহুগুনে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমান অবস্থাতে পান ব্যবসায়ী ও ক্রেতা সাধারণ সবাই নতুন এক নাজেহাল অবস্থার মধ্যে পড়েছি।


Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category


© All rights reserved © 2020 www.manirampurkantho.com
Site Customized By NewsTech.Com